কম্পিউটার হ্যাং হলে করণীয়

কম্পিউটার হ্যাং হলে করণীয়
কম্পিউটার হ্যাং হলে করণীয়

কম্পিউটার হ্যাং কি

কম্পিউটার হ্যাং হলো এমন একটি অবস্থা যখন কম্পিউটার অস্বাভাবিক আচরণ করে, সঠিকভাবে ফলাফল দেখায় না, স্ক্রিন স্থির হয়ে থাকে, অপ্রত্যাশিত কিছু দেখায়, মাউস কিংবা কিবোর্ড এ রেসপন্স করে না। মূলত এসব লক্ষন দেখা দিলে আমরা বলি যে কম্পিউটার হ্যাং হয়েছে।

দেখা যাচ্ছে আমরা অনেক সময় কম্পিউটারে গুরুত্বপূর্ন কাজ করতে থাকি। তখন দেখা যায় গুরুত্বপূর্ণ কাজের সময় কম্পিউটার-হ্যাং হচ্ছে বা প্রোগ্রাম ক্র্যাশ করছে। এখন এ সমস্যাটি খুবই সাধারণ। এটি বিভিন্ন কারণে হতে পারে, যেমন সফ্টওয়্যার বা হার্ডওয়্যার সমস্যা, অতিরিক্ত লোড, বা ভাইরাস বা ম্যালওয়্যার সংক্রমণ।

কম্পিউটারে কোনো গুরুত্বপূর্ণ কাজের সময় কম্পিউটার-হ্যাং করে বা প্রোগ্রাম ক্রাশ হতে পারে। কিছু নিয়ম মেনে চললে হ্যাং অবস্থা এড়িয়ে যাওয়া সম্ভব।

কম্পিউটার হ্যাং হওয়ার কারনগুলো

  • অপ্রয়োজনীয় ফাইল জমা: কম্পিউটার ব্যবহারের সময় প্রতিনিয়ত বিভিন্ন ধরনের অপ্রয়োজনীয় ফাইল জমা হতে থাকে। এগুলির মধ্যে রয়েছে টেম্পোরারি ফাইল, ব্রাউজার ক্যাশ, ডাউনলোড ফাইল ইত্যাদি। এই ফাইলগুলি কম্পিউটারের মেমরি এবং স্টোরেজ স্পেস দখল করে নেয়, যার ফলে কম্পিউটার কাজের সময় হ্যাং হতে পারে।
  • হার্ডওয়্যার সমস্যা: কম্পিউটারের হার্ডওয়্যারে কোনও সমস্যা থাকলে, তা কম্পিউটার হ্যাং হওয়ার কারণ হতে পারে। যেমন, হার্ডডিস্ক ড্রাইভের সমস্যা, র‍্যামের সমস্যা, প্রসেসর সমস্যা ইত্যাদি।
  • সফটওয়্যার ত্রুটি: কম্পিউটারের অপারেটিং সিস্টেম বা অন্য কোনও সফটওয়্যারে কোনও ত্রুটি থাকলে, তা কম্পিউটার কাজের সময় হ্যাং হওয়ার কারণ হতে পারে।
  • ড্রাইভার সমস্যা : অনেক সময় প্রয়োজনীয় ড্রাইভারগুলো নিয়মিত আপডেট না থাকায় কম্পিউটার হ্যাং হয়।
  • ভাইরাস বা ম্যালওয়্যার : ভাইরাস বা ম্যালওয়্যার দ্বারা আক্রান্ত হলে কম্পিউটার হ্যাং হতে পারে।

কম্পিউটার হ্যাং সমস্যা সমাধানের জন্য

  1. অপ্রয়োজনীয় ফাইল ডিলিট: অপ্রয়োজনীয় ফাইলগুলো ডিলিট করে ফেলার জন্য আপনি Ctrl + Alt + Delete কী চেপে Windows Task Manager ওপেন করে সেখান থেকে অপ্রয়োজনীয় ফাইলগুলি খুঁজে বের করে সেগুলোকে ডিলিট করে ফেলতে পারেন।
  2. কম্পিউটারটি নিয়মিত স্ক্যান: ভাইরাস কম্পিউটারের হ্যাং হওয়ার একটি সাধারণ কারণ। তাই আপনার কম্পিউটারটি নিয়মিত স্ক্যান করুন এবং ভাইরাস দূর করুন।
  3. কম্পিউটারের হার্ডওয়্যারটি পরীক্ষা করুন: যদি আপনার কম্পিউটারের হার্ডওয়্যারে কোনও সমস্যা থাকে, তাহলে এটি কম্পিউটারের হ্যাং হওয়ার কারণ হতে পারে। তাই আপনার কম্পিউটারের হার্ডওয়্যারটি পরীক্ষা করে দেখুন।
  4. OS আপডেট করুন: অপারেটিং সিস্টেমের আপডেটগুলি কম্পিউটার হ্যাং হওয়ার সমস্যা সমাধানে সহায়তা করতে পারে। তাই আপনার কম্পিউটারের অপারেটিং সিস্টেমটি আপডেট করুন।
আরো পড়ুন  কিভাবে বিকাশ অ্যাপে বায়োমেট্রিক লগইন চালু করবেন

যদি আপনি উপরের পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করেও আপনার কম্পিউটার-হ্যাং হওয়ার সমস্যা সমাধান করতে না পারেন, তাহলে আপনি একজন কম্পিউটার বিশেষজ্ঞের সাহায্য নিতে পারেন।

কম্পিউটার-হ্যাং হওয়ার সমস্যা থেকে রক্ষা পেতে আপনি নিম্নলিখিত বিষয়গুলিও লক্ষ্য রাখতে পারেন:

  • কম্পিউটারটি নিয়মিত পরিষ্কার করুন: কম্পিউটারের হার্ডওয়্যারকে সচল রাখতে রাখতে নিয়মিত পরিষ্কার করুন।
  • কম্পিউটারটিকে সঠিকভাবে ব্যবহার করুন: কম্পিউটারকে সঠিকভাবে ব্যবহার করুন। লো কনফিগ এর কম্পিউটার হলে সেখানে খুব বেশি মাল্টিটাস্কিং ও অত্যধিক সফটওয়্যার ইন্সটল না করাই ভালো।
  • কম্পিউটারটিকে নিয়মিত আপডেট করুন: কম্পিউটারের অপারেটিং সিস্টেম, ড্রাইভার এবং সফটওয়্যারগুলিকে নিয়মিত আপডেট করা অত্যন্ত জরুরি। তাই এ বিষয়ে খেয়াল রাখুন।
  • ওভারহিটিং নিয়ন্ত্রণ: কম্পিউটারের প্রতিটি যন্ত্রাংশ নির্দিষ্ট পরিমাণ তাপমাত্রা সহ্য করতে পারে। তার থেকে বেশি তাপমাত্রা হলে কম্পিউটার-হ্যাং করে। তাই ওভারহিটিং করা থেকে বিরত থাকুন।

অতিরিক্ত টিপস

এখানে কিছু অতিরিক্ত টিপস রয়েছে যা আপনাকে কম্পিউটার হ্যাং থেকে বাঁচতে সাহায্য করতে পারে:

  • ভাল মানের পাওয়ার সাপ্লাই ব্যবহার: পাওয়ার সাপ্লাই ব্যবহারের ক্ষেত্রে মান যাচাই করা প্রয়োজন। বিশেষ করে যারা গেমিং, ভিডিও এডিটিগ করেন তাদের জন্য এটি লক্ষ্য রাখা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। 
  • কম্পিউটারটিকে পরিষ্কার এবং ঠান্ডা জায়গায় রাখুন। অতিরিক্ত তাপ উৎপন্ন করে এমন স্থান থেকে কম্পিউটারকে দূরে রাখাই উত্তম।
  • ভাল মানের অ্যান্টিভাইরাস সফ্টওয়্যার ব্যবহার। একটি ভাল মানের অ্যান্টিভাইরাস এবং অ্যান্টি-ম্যালওয়্যার সফ্টওয়্যার ভাইরাস বা ম্যালওয়্যার সংক্রমণ থেকে আপনার কম্পিউটারকে রক্ষা করতে সাহায্য করবে। তাই অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার এর সময় ভালোটা ব্যবহার করুন।

কম্পিউটার-হ্যাং হওয়া একটি বিরক্তিকর সমস্যা হতে পারে। তবে, উপরের টিপসগুলি অনুসরণ করে আপনি আপনার কম্পিউটার হ্যাং হওয়ার সম্ভাবনা কমাতে পারেন।

আর কম্পিউটার হ্যাং হওয়ার কারণগুলি বিভিন্ন হতে পারে, তাই সমস্যাটি নির্দিষ্টভাবে নির্ধারণ করা গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যদি আপনি

Techprithibi ফেসবুক গ্রুপে যোগ দিয়ে প্রযুক্তি বিষয়ক যেকোনো প্রশ্ন করতেঃ এখানে ক্লিক করুন
Techprithibi ফেসবুক পেইজ লাইক করে সাথে থাকতে এই পেজ ভিজিট করুন
– গুগল নিউজে Techprithibi সাইট ফলো করতে এই লিংকে
Techprithibi সাইটে লিখতে চাইলে যোগাযোগ করুন এই লিংকে
– প্রযুক্তির সব তথ্য জানতে নিয়মিত ভিজিট করুন www.techprithibi.com সাইট।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top